Home / অন্যান্য / ডেঙ্গু: গণমাধ্যমকে দোষারোপ করলেন ডিজি হেলথ ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ডেঙ্গু: গণমাধ্যমকে দোষারোপ করলেন ডিজি হেলথ ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী

রাজধানীতে ডেঙ্গু ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়ার সময় দেশের বাইরে অবস্থান করে সমালোচনার মুখে পড়া স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডেঙ্গু সংক্রান্ত সংবাদ প্রকাশে গণমাধ্যমের কাছ থেকে দায়িত্বশীলতার আশা করেছেন।

বৃহস্পতিবার রাজধানীতে দৈনিক যুগান্তর কার্যালয়ে আয়োজিত ‘ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণ ও সচেতনতায় করণীয়’ শিরোনামে এক গোলটেবিল আলোচনায় যোগ দিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে, বছরের শুরু থেকে ৮ অগাস্ট বিকাল অবধি সারা দেশে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা ৩৪ হাজার ৬৬৬ জন। এদের মধ্যে দেশের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৮ হাজার ৭৬৫ জন।

বৃহস্পতিবার বিকালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রতিবেদনে বলা হয়, বুধবার সকার ৮টা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত সারা দেশে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত নতুন রোগীর সংখ্যা দুই হাজার ৩২৬ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রতিবেদনে এই পর্যন্ত সারা দেশে ডেঙ্গুতে মৃতের সংখ্যা ২৯ জন বলা হলেও গণমাধ্যমে বলা হচ্ছে সংখ্যাটি ৯০ ছাড়িয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, “রোগীর সংখ্যা ও মৃতের সংখ্যা হাইড করার কিছু নাই। তবে সংখ্যা ফুলিয়ে ফাঁপিয়ে বলার মতো কিছু নাই।”

সাংবাদিকদের তিনি বলেন, “এমন কোনো ফিগার বলবেন না যেন আতঙ্কিত হয়ে হাসপাতালগুলোতে রোগীর লম্বা লাইন লেগে যায়। এটা থেকে বিরত থাকুন। ব্যঙ্গ করলে চলবে না। দেখতে হবে কতটুকু সেবা দিলাম, কতগুলো হাসপাতালে ভিজিটে গেলাম।”

গণমাধ্যমের কাছে দায়িত্বশীলতা আশা করে তিনি বলেন,“আপনাকে রেসপনসিবল হতে হবে। প্রত্যেককে যার ‍যার অবস্থান থেকে রেসপনসিবিলিটি শো করতে হবে।”

ডেঙ্গুর ভয়াবহতা যখন বাড়ছে, তখন সপরিবারে মালয়েশিয়া চলে গিয়েছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। পরে সমালোচনার মুখে সফর সংক্ষিপ্ত করে তিনি দেশে ফিরে আসেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বিদেশ সফরে গিয়ে ‘দায়িত্বজ্ঞানহীনতার পরিচয় দিয়েছেন’ বলে অভিযোগ আসে বিরোধী দল জাতীয় পার্টি ও বিএনপির পক্ষ থেকে। বিএনপি নেতারা তার পদত্যাগের দাবিও জানিয়েছিলেন।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমও ডেঙ্গু মোকাবেলায় সমন্বয়হীনতার কথা বলেছিলেন।

সমালোচনার জবাবে জাহিদ মালেক বলেন, “অনেকে অনেক কথা বলেছে। ক’জনে পাশে দাঁড়িয়েছে, কজনে হাসপাতালে ভিজিট করছে? এ বিষয়গুলো আমাদের বোঝার বিষয় আছে।”

তবে ডেঙ্গু মোকাবেলায় পরিকল্পনার অভাবের কথা স্বীকার করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

“আমাদের প্ল্যানিংয়ের অভাব ছিল। তবে নাউ থিংস উইল বি অলরাইট। আমাদের সঠিক জায়গায় অ্যাকশনে যেতে হবে। প্রবলেম থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।”

বৃহস্পতিবার ঢাকায় দৈনিক যুগান্তর কার্যালয়ে আয়োজিত ‘ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণ ও সচেতনতায় করণীয়’ শিরোনামের এক গোলটেবিল আলোচনায় তিনি একথা বলেন।

ডেঙ্গু জ্বরে হাজার হাজার মানুষ আক্রান্ত হওয়ায় আতঙ্কের মধ্যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার  দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া কার্যালয়ের জ্যেষ্ঠ কীটতত্ত্ববিদ নাগপাল গত গত ৫ অগাস্ট স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলনে এসেছিলেন।

ডেঙ্গুর বাহক এইডিশ মশার জীবনাচরণের দিকটি তুলে ধরে তিনি সকাল ও সন্ধ্যায় ঘরে অ্যারোসেল স্প্রে করার পরামর্শ দিয়েছিলেন, যা গণমাধ্যমে এসেছিল।

এই গোলটেবিল আলোচনায় কীটতত্ত্ববিদ মঞ্জুর চৌধুরী বলেন, “নাগপাল যেসব পরামর্শ দিয়ে গেছেন, আমরা তার সাথে একমত নই। তিনি আমাদের মিসলিডিং তথ্য দিয়ে চলে গেছেন।”

তখন আবুল কালাম আজাদ বলেন, “তিনি (নাগপাল) বলেছিলেন, প্রতি সপ্তাহে এক ঘণ্টা করে ওষুধ দিতে। কিন্তু গণমাধ্যমে খবর এসেছে, প্রতি দিন ওষুধ ছিটানোর কথা।”

“তাহলে তো আর কোনো কাজ করতে হবে না, শুধু মশা মারতে হবে,” বলেন তিনি।

এই প্রসঙ্গ ধরে ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, “আমরা (চিকিৎসকরা) যা বলি, তা সঠিকভাবে গণমাধ্যমে আসে না সবসময়। এতে সম্পর্কের অবনতি হয়, ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়।”

About Shariful Islam Khan

Check Also

বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম খানের ১৪ তম মৃত্যুবার্ষিকী

নিজস্ব প্রতিবেদন ঃ আজ ৩রা আগস্ট বীর প্রখ্যাত শ্রমিকনেতা মুক্তিযোদ্দ্বা সিরাজুল ইসলাম খানের ১৪ তম মৃত্যুবার্ষিকী। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *